১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

রামনবমীর সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে মাথা ফাটলো এক সাংবাদিকের

নিজস্ব প্রতিনিধি : রামনবমীর শোভাযাত্রায় সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে মাথা ফাটলো এক সাংবাদিকের বর্ধমানে।

 

Advertisement

এদিন বর্ধমান শহরজুড়ে রামনবমীর মিছিল ছিল চোখে পড়ার মতো। রামনবমীর মিছিলে প্রসেশন সহ দেখা গেছে বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রের সমাহার।

 

Advertisement

এর সঙ্গে চলেছেন ডিজে,সঙ্গে চলেছে উদ্যম নৃত্য।

 

Advertisement

কার্যত এদিন বিকেল থেকে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল বিসি রোড, রাজবাড়ী চত্বর ,জোড়া মন্দির সংলগ্ন এলাকার সহ বহু এলাকা।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

পুলিশ ও ছিল নিরাপত্তা রক্ষার জন্য, কিন্তু তারই ফাঁকে ঘটে গেছে অঘটন। রীতিমতো সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে আহত দুই সাংবাদিক তাদের মধ্যে মাথা ফাটালো বর্ধমান শহরের এক সাংবাদিকের।উল্লেখ্য, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখেই এবার আদালতের কড়া নির্দেশ ছিল অস্ত্র নিয়ে কোনো রামনবমীর মিছিল করা যাবে না।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ডিজে বাজানোও। কিন্তু আইন আইনের জায়গাতেই থাকলো এদিন আর চলল নিজেদের আইন।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

এদিন বিকেলে বর্ধমানের বাদামতলার নাগেশ্বর শিবতলা থেকে একটি ১৩ ফুটের হনুমান মূর্তি নিয়ে অস্ত্রহীন শোভাযাত্রা বের হয়ে জামতলা পর্যন্ত যায়। অপরদিকে, কার্জনগেট, বিসিরোড এলাকায় খোদ পুলিশ কর্মীদের সামনেই চলল অস্ত্র নিয়ে এই রামনবমীর মিছিল। যদিও কার্জনগেটের কাছে আসতেই অনেকে এই অস্ত্রকে লুকিয়ে নিয়েছেন। তৃণমূল কংগ্রেস, বিজেপির পক্ষ থেকেও এদিন ক্ষমতা প্রদর্শনের এই মিছিল করা হল। আর উদ্দাম নাচে আহতও হলেন দুই কর্তব্যরত সাংবাদিক। মাথা ফাটল একজনের। গোটা কার্জন গেট সহ বর্ধমান শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা কার্যত অঘোষিত বন্ধের আকার নিয়েছিল বিকেল থেকে।জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এদিন এই মিছিল থেকে একটি তরোয়াল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। যে সমস্ত আখড়া কমিটির নেতৃত্বে এই অস্ত্র নিয়ে শোভাযাত্রা করা হয়েছে, পুলিশ তার ভিডিও ফুটেজ খতিয়ে দেখছে বলে জানা গেছে। এদিন বিকালে বর্ধমানের বিসিরোড দিয়ে একটি শোভাযাত্রা কার্জন গেটে আসে। এই শোভাযাত্রাতেই একাধিক তরোয়াল, টাঙি নিয়ে নাচানাচি করতে থাকেন ভক্ত সমর্থকরা। একইসঙ্গে বিশালাকার লাঠি, স্টিলের স্টিকে লাগানো পতাকা নিয়ে চলে নাচানাচি। এই খবর করতে গিয়ে লাঠির আঘাতে মাথা ফাটে সুখবর পত্রিকার সাংবাদিক বিপুন ভট্টাচার্য্যের। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন সহ সাংবাদিকরা। এই লাঠির ঘায়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন সাংবাদিক সঞ্জয় কর্মকারও। এরপরই পুলিশ শোভাযাত্রা থেকে একটি তরোয়াল বাজেয়াপ্ত করে।

 

Advertisement

সাধারণ মানুষ তাদের বক্তব্য, কিছুটা ক্ষমতা প্রদর্শন এই দিনের এই মিছিল কে লক্ষ্য করে দেখা গেছে। সমস্যায় পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

Advertisement