১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

ডাম্পিং গ্রাউন্ডে নোংরা আর্বজনা পরে রয়েছে রাস্তায়, অসুবিধায় পরেছে বর্ধমান-কালনা রোডের বাসিন্দারা

প্রসূন সামন্ত, পূর্ব বর্ধমান ঃ ড্যাম্পিং গ্রাউন্ডে জমে থাকা পাহাড় প্রমাণ আর্বজনা গরিয়ে রাস্তায় অসুবিধা মুখে পরতে হচ্ছে বর্ধমান-কালনা রোডের উপর যাতায়াতকারীদের। সেই সাথে দুর্গন্ধের সঙ্গে নানান রোগের প্রোকপ বারার আতঙ্কে নিয়ে দিন কাটছে এই কালনা রোড সংলগ্ন এগ্রিকালচার ফার্ম এলাকার বাসিন্দাদের। শুধু এই এলাকাই নয় বর্ধমান-কালনা রোড দিয়ে যাতায়াতকারী হাজার হাজার মানুষের নিত্য যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বর্ধমান পুরসভার এই ডাম্পিং গ্রাউন্ড।

প্রত্যেকদিনই নোংরা,আর্বজনা রাস্তায় পরে থাকায় বারছে ছোট ছোট পথ দূর্ঘটনার মতো ঘটনা। ফলে পরিস্থিতি ক্রমশই ভয়াবহ আকার নিচ্ছে। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, শহরের নোংরা আর্বজনা জমতে জমতে ডাম্পিং গ্রাউন্ড ভর্তী হয়ে যাওয়ায় গ্রাউন্ডে না ঢুকে বাইরে নোংরা ফেলে চলে যাচ্ছে পুরসভার গাড়ি গুলি। এর ফলে গ্রাউন্ডের পাশে থাকা রাজ্য সড়কের উপরেই পরে থাকছে বর্ধমান শহরের ৩৫টি ওয়ার্ডের যাবতীয় জঞ্জাল, ময়লা, আবর্জনা।

Advertisement

আর প্রতিদিন সেই আবর্জনা ও নোংরা জলের পাশ দিয়েই আবার কখনো তার উপর দিয়েই যাতায়াত করতে বাধ্য হচ্ছে স্থানীয়রা। এছাড়া এর থেকে নানান রোগ ছড়ানোর সম্ভাবনা নিয়েই যাতায়াত করতে হচ্ছে এই স্থানীয় বাসিন্দাদের বলে অভিযোগ । স্থানীয় এক টোটো চালক শিবু সূত্রধর বলেন, রাস্তার উপরেই বেশ কয়েকদিন ধরেই ডাম্পিং গ্রাউন্ডের নোংরা,ময়লা পরে থাকছে। এতে বর্ধমান-কালনা যাতায়াতের এই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি সরু হয়েগেছে। ইতিমধ্যে দুটো ছোট পথ দূর্ঘটনা মতো ঘটনা ঘটেছে। অবিলম্বে এই বিষয়ে বর্ধমান পুরসভা গুরুত্ব সহকারে দেখলে খুব ভালো হয়।

এবিষয়ে বর্ধমান পুরসভার সহ-প্রসাশক আইনুল হক বলেন, ডাম্পিং গ্রাউন্ডের ময়লা,আর্বজনা যা রাস্তায় চলে এসেছে তা ব্যতিক্রমী ঘটনা। এই মুহুর্তে গ্রাউন্ডে আর্বজনা ধারণের ক্ষমতা বৃদ্ধির কাজ পুরোদমে চলানো হচ্ছে। শহরের ৩৫টি ওয়ার্ডের যাবতীয় ময়লা-আর্বজনা এই ডাম্পিং গ্রাউন্ডে পরার জন্য প্রতিদিনই ডাম্পিং এর পরিমান বারছে। মাঝে কয়েকদিন আর্বজনা প্রক্রিয়াকরণের মেশিন খারাপ ছিলো, সেই সাথে পূজোপার্বনে শ্রমিকদের ছুটি থাকায় গ্রাউন্ডে জমা হওয়া ময়লা,আর্বজনা রাস্তার পাশে চলে এসেছে।

Advertisement

এক-দুদিনের মধ্যে প্রক্রিয়াকরণ মেশিন গুলি চালু করে গ্রাউন্ডে জমে থাকা যাবতীয় নোংরা সারে রুপান্তরিত করা হবে। আগামী দিনে আমরা নোংরা,ময়লা,আর্বজনা বিহীন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন শহর বর্ধমানবাসিকে উপহার হিসাবে দিতে পারবো বলে দাবী করেন সহ-প্রশাসক আইনুল বাবু। অন্যদিকে, বিজেপির সদর জেলার সম্পাদক শ্যামল রায় বলেন, বর্ধমান-কালনা রোডের মতো গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উপর দিনের পর দিন ডাম্পিং গ্রাউন্ডের আর্বজনা পরে থাকছে। এতে যেমন পথ দূর্ঘটনা বারবে তেমনই এর দূর্গন্ধে রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করা দূষ্কর হয়ে দাঁড়াচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। তৃণমূল নেতার নিজেদের মধ্যে খেওখেয়ি বন্ধ করে ডাম্পিং গ্রাউন্ডের সমস্যা টা আগে মেটালে সাধারণ মানুষের উপকার হবে।।

Advertisement