১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

বিরোধীরা দেশকে ভাগ করার জন্য ভোটে লড়ছে : মোদি

সুশান্ত বাগ : বাংলায় তৃণমূলের এক বিধায়কের বক্তব্য তিনি টিভিতে শুনেছেন, বিধায়ক বলেছেন হিন্দুদের হটিয়ে দেবো দু’ঘণ্টার মধ্যে। এ কোন ভাষা? বাংলায় হিন্দুরা কি অবস্থায় রয়েছেন? কি হচ্ছে বাংলার হিন্দুদের সঙ্গে? হিন্দুদের দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক করে রাখা হয়েছে। সন্দেশখালিতে অপরাধীদের রাজ্যের সরকার বাঁচাতে চাইছে, পুষ্টীকরণের রাজনীতি হচ্ছে। শুক্রবার ঠিক এই ভাবেই তৃণমূল সহ বিরোধীদের আক্রমণ করেন বর্ধমানের ছিনুটির কাছে তাই কমপ্লেক্সের মাঠে বিজয় সংকল্প সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

তিনি বলেন,ইণ্ডিয়া জোট মোদির বিরুদ্ধে ভোট জেহাদ ঘোষণা করেছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বাংলায় দুর্নীতি হয়েছে, নির্দোষদের সবরকমের আইনী সহায়তা দেবে বিজেপি ।

নিজস্ব সংবাদদাতা, বশর্ধমান, ৩ মে – শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বাংলায় চরম দুর্নীতি হয়েছে, কিন্তু অনেক নির্দোষ ফেঁসে গেছে। যে অন্যায় করেছে সে ভুগবে। তৃণমূল সব জায়গায় লুঠপাট চালাচ্ছে। একইসঙ্গে এদিন তিনি আক্রমণ শানিয়েছেন ইণ্ডিয়া জোটের বিরুদ্ধেও। মোদি বলেন, টিএমসি, কংগ্রেস বলছে মোদিকে লাঠি মার দো, গোলি মার দো। কিন্তু মোদি দাঙ্গাবাজদের সঙ্গে নেই। গরীবের জেদ অটুট। আমারও অটুট। যতই আমার বিরোধিতা করো। আমি হারছিনা। ত্রিপুরা ৫ বছরে সেখানকার মানুষের জীবনযাত্রা বদলে দিয়েছে বিজেপি। তিনি বলেন, এরা একটাই পারে ভোটের জন্য সমাজকে ভাগ করো, দেশকে ভাগ করো। ধ্বংস করতে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

তিনি বলেন, ভোট ব্যাঙ্ক মানুষের থেকে বড় নাকি। তৃণমূল তোষণের রাজনীতি করে। ইন্ডিয়া জোট ভোট ব্যাংকের জন্য সমস্ত কিছু করতে পারে। কংগ্রেস চায় আপনাদের সম্পত্তি লুঠ করতে। বাম, তৃণমূল, কংগ্রেস ভোটের নামে বিভাজন করে সব সময়। দলিত ও অদিবাসীদের পিছিয়ে দিতে চায় কংগ্রেস। তাই সংরক্ষণ প্রথা চালিয়ে যেতে চাইছে। দলিত আর আদিবাসীরা বিজেপিকে ভোট দিয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের সংবিধান জাতপাত, ধর্মের ভিত্তিতে সংরক্ষণ দিতে বলে না। জন্মের ওপর সংরক্ষণ, ধর্মের ওপর সংরক্ষণ করতে চাইছে কংগ্রেস। দলিত, সংখ্যালঘুদের নিয়ে মিটিং করছে যাতে তাদের ভোট পায়, তাদের সংরক্ষণ জারী রাখতে পারে।

বিরোধীরা দেশকে ভাগ করার জন্য ভোটে লড়ছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

মোদি এদিন বলেন, কেন্দ্র সরকারের পাঠানো সমস্ত টাকা তৃণমূল এর তোলাবাজরা লুঠ করে নিয়েছে। তৃণমূল এর তোলাবাজরা সব জায়গায় পৌঁছে যাচ্ছে, টাকার হিসাব করতে গিয়ে মেশিন কাহিল হয়ে যাচ্ছে। এদিন মোদি বলেন, মোদি জানান,কেন্দ্রের সব প্রকল্পে টি এম সি তোলাবাজি করেছে। লুঠপাট করেছে।মোদির বিরুদ্ধে ভোট জিহাদ ঘোষণা করেছে। কংগ্রেস, সিপিএম, টিএমসি সব ভোট জেহাদের সমর্থক। তাই চুপ। মোদি যতদিন বাঁচবে কাউকে লুঠতে দেবে না। নাম না করেই এদিন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে আক্রমণ করেন মোদি। তিনি বলেন, কোথাও নিশ্চিত আসন পাচ্ছে না। আমি বলেছিলাম ভোটে লড়তে ভয় পাচ্ছে। পালিয়ে বেড়াবে। রায়বেরিলিতে রাস্তা হারিয়ে ফেলেছে। আমেথিতেও রাস্তা হারিয়েছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

যদিও এদিন রায়বেরিলি আসনেই মনোনয়ন জমা দিয়েছেন রাহুল। মোদি বলেন, আমার আগে কেউ নেই পিছে কেউ নেই। আপনারাই আমার পরিবার, মেরা ভারত মেরা পরিবার। এদিন অন্যান্যদের মধ্যে এই সভায় উপস্থিত ছিলেন বর্ধমান দুর্গাপুর আসনের প্রার্থী দিলীপ ঘোষ, বর্ধমান পূর্বের প্রাথী অসীম সরকার, রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, জেলা সভাপতি অভিজিত তা প্রমুখরাও। উল্লেখ্য, এদিন রাজ্যপালের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ প্রসঙ্গে সুকান্ত মজুমদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী আসার আগে এই ধরণের অভিযোগ তোলার পিছনে কোনো কারণ আছে কিনা দেখা দরকার। বাকি অভিযোগ সম্পর্কে তদন্ত হলেই বোঝা যাবে।

Advertisement