১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

পল্লীকবি কুমুদরঞ্জন মল্লিকের জন্মদিন উপলক্ষে আজ অনুষ্ঠিত হলো মঙ্গলকোটের কোগ্রামে কুমুদ সাহিত্য মেলা।

সৌমি মন্ডল :পল্লিকবি কুমুদরঞ্জন মল্লিকের ১৪০ তম জন্মজয়ন্তী পালিত হল পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের কোগ্রামে ।বৃহস্পতিবার কুমুদ সাহিত্য কমিটির পক্ষ থেকে কোগ্রামে অজয় নদের ধারে কবির জন্মভিটেতে গাছগাছালিতে ভরা পরিবেশের মধ্যে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় । উপস্থিত হয়েছিলেন কুমুদরঞ্জন মল্লিক এর নাতনি মহেশ্বেতা বন্দ্যোপাধ্যায়,কবি কাজি নজরুল ইসলামের নাতনি সোনালী কাজিসহ সমাজের বিভিন্নস্তরের ব্যক্তিবর্গ ।
কুমুদ সাহিত্য কমিটির পক্ষ থেকে বিগত দু’দশকের অধিক সময় ধরে আয়োজন করা হচ্ছে কুমুদ সাহিত্য মেলা । প্রতি বছরের মত এবারেও তার ব্যাতিক্রম হয়নি । কমিটির পক্ষ থেকে এদিন আমন্ত্রিত ব্যক্তিদের হাতে বিভিন্ন পুরষ্কার তুলে দেওয়া হয় । পদ্মশ্রী চিকিৎসক সুশোভন বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে ‘কুমুদ সাহিত্য রত্ন’ পুরষ্কার তুলে দেওয়া হয় । ‘বিধান রায় রত্ন’ পুরষ্কার দেওয়া হয় বার কাউন্সিল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গলের কার্যনির্বাহী চেয়ারম্যান শ্যামল ঘটকের হাতে । এছাড়া ‘লোচন দাস রত্ন’,’ বিশিষ্ট পুলিশ আধিকারিক তথা লোকো গবেষক ও সাহিত্যিক সুখেন্দু হীরার হাতে তুলে দেওয়া হল এছাড়া নজরুল ইসলাম রত্ন’- সহ বেশ কিছু পুরষ্কার তুলে দেওয়া হয় পুলিশ, আইনজীবি, সাংবাদিক,শিক্ষকসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের কৃতি মানুষের হাতে মিডিয়া পার্টনার এর পক্ষ থেকে বেশ কয়েকজন গুণী মানুষের হাতে স্মারক সম্মান তুলে দেওয়া হয় তাদের মধ্যে বাঁকুড়া জেলা থেকে প্রকাশিত একমাত্র দৈনিক পত্রিকা অমৃতধারার পক্ষ থেকে বিশিষ্ট সাহিত্যিক শিবরাম পন্ডার হাতে সম্মাননা পত্র তুলে দেন কাজী নজরুল ইসলামের নাতনি সোনালী কাজী । সাংবাদিক ধীমান রায় কে বিশেষ সম্মানে সম্মানিত করা হয়।এছাড়া সারা রাজ্যে বিভিন্ন প্রান্তের অন্তত কুড়িজন গুণী মানুষের হাতে সম্মাননা জ্ঞাপন করা হয় ।

বিশিষ্ট চিকিৎসক সুশোভন বাবু বলেন এই সম্মান পেয়ে আমার দায়িত্ব আরো অনেক বেড়ে গেল যতদিন বাঁচবো মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখবো। সুখেন্দু হীরা বলেন এত সুন্দর একটা গ্রামীণ পরিবেশে কুমুদ সাহিত্য মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে অনেকদিন ধরে খুব ভালো লাগছে। এই ধরনের অনুষ্ঠান ও সাহিত্য-সংস্কৃতিচর্চা অনেকটা কমে গেছে। যুবসমাজের কাছে এই চর্চা তুলে ধরতে হবে আমাদের। উল্লেখ্য তিনি তাঁর প্রকাশিত বই উপস্থিত সমস্ত মানুষের কাছে নিজের হাতে তুলে দেন।
আজ কোগ্রামে কো গ্রামে কবির জন্ম ভিটে মধুকর প্রাঙ্গণে আম ও তেঁতুল গাছের তলায় বসেছিল কবি-সাহিত্যিকদের চাঁদের হাট যার মূল উদ্যোক্তা হলেন কুমুদ সাহিত্য মেলা কমিটির সম্পাদক মোল্লা জসীমউদ্দীন।কবি, সাহিত্যিক সাংবাদিক গুণীজনদের উপস্থিতিতে মুখরিত হয়ে ওঠে কোগ্রামের কবির বসতবাড়ি প্রাঙ্গণ।

Advertisement