২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
Advertisement

চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালে অমানবিক ছবি

রাকেশ চক্রবর্তী : তিনদিন ধরে হাসপাতালের টিকিট ঘরের সামনে পরে রয়েছে এক বৃদ্ধ,কেউ ঘুরেও দেখেনি।পাঁজরের হার বেরিয়ে পরেছে,পরনের লুঙ্গি খুলে গিয়ে নগ্ন অবস্থায় মেঝেতে পরে রয়েছে,দেখে মনে হয় শ্বাসকষ্টে ভুগছে বৃদ্ধ।জল পিপাসা পেলেও উঠে গিয়ে জল খাবার ক্ষমতা নেই।

এমন একজন হাসপাতালে পরে থাকলেও হয়নি চিকিৎসার ব্যবস্থা। বিজেপি স্থানীয় কর্মিরা জানতে পেরে বৃদ্ধকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করতে গেলে ভর্তি নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

অজ্ঞাত পরিচয় বৃদ্ধের আধার কার্ড দেখে তবেই ভর্তি করা হবে বলে জানানো হয়।

আজ রবিবার থাকায় আউট ডোর বন্ধ তাই টিকিট কাউন্টারও ফাঁকা।মেঝেতে পরে রয়েছে বৃদ্ধ।কেন একজন অসহায় এভাবে হাসপাতালেই পরে থাকবে অথচ তার চিকিৎসা হবে না এই প্রশ্ন উঠতেই।হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ উদ্যোগ নেয়।হাসপাতাল কর্মি অসীম সেন জানান,অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তি পরে রয়েছে তারা জানতে পেরেছেন। চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

অবশেষে ব্যবস্থা নিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। টেচারে করে তুলে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করল। বৃদ্ধর পাশে থাকা ব্যাগ থেকে আধার কার্ড, ব্যাংকের বই মেলে।তার নাম তপন কুমার নাগ বয়স (৭৪) প্রশ্ন উঠছে কেনো তিন দিন হাসপাতালের টিকিট ঘরের সামনে পড়ে থাকলো বৃদ্ধা। কেউ দেখেও কেনো দেখলো না৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কেনো বৃদ্ধার চিকিৎসার ব্যবস্থা করলো না।

Advertisement