৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

বাঁকুড়া আরপিএফ এর উদ্যোগে হারিয়ে যাওয়া জিনিস ফেরত

নিজস্ব সংবাদদাতা :গত ৩০ ডিসেম্বর দক্ষিণ পূর্ব রেলের আদ্রা ডিভিশনের বাঁকুড়া স্টেশনে একটি লাল কালো ব্যাগকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়। ওই দিন সকাল দশটা নাগাদ পাটনা – কোয়েম্বাটুর এক্সপ্রেস স্টেশনে আসার পরই কর্তব্যরত আরপিএফ কর্মীরা লক্ষ্য করেন ট্রেনটির ৪ নম্বর কম্পার্টমেন্টে একটি ব্যাগ পড়ে রয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে সাব-ইন্সপেক্টর এস কে পান্ডে, কনস্টেবল এন মন্ডল এবং এল সি এম আমনি সহ ৫ জন আরপিএফ কর্মী সঙ্গে সঙ্গে ব্যাগ টি উদ্ধার করেন। ব্যাগটির মধ্যে পাওয়া যায় একটি দামি ঘড়ি, বেশ কিছু মূল্যবান জামাকাপড় প্রভৃতি। সঙ্গে সঙ্গে তারা বাঁকুড়া ষ্টেশনে আরপিএফ পোস্টে সেটি জমা করেন। ইতিমধ্যে যে ব্যক্তির ওই ব্যাগ তিনি অভিযোগ জানানোয় তার ঠিকানা পাওয়া যায় এবং তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। জানা যায় ওই ব্যক্তির নাম এস পৃথইন কে,বাড়ি কেরালার ত্রিচুরে। তার সঙ্গে যোগাযোগ করে তাকে নির্দিষ্ট প্রমাণ দিয়ে বাঁকুড়া আরপিএফ পোস্টে এসে ব্যাগটি নিয়ে যাওয়ার জন্য বলা হয়।
আরপিএফ আধিকারিকের জানতে পারেন ওই ব্যক্তি অর্থাৎ পৃথইন বাবু ওই ট্রেনের যাত্রী ছিলেন। তিনি কিছু টাকা তুলতে আসানসোল স্টেশনে নেমে ছিলেন। কিন্তু টাকা তুলতে দেরি হওয়ায় ট্রেনটি ছেড়ে চলে যায়। তিনি সঙ্গে সঙ্গে আসানসোল স্টেশন এর আরপিএফ পোস্টে অভিযোগ দায়ের করেন। পরবর্তীতে গত ৩১ ডিসেম্বর তিনি বাঁকুড়া ষ্টেশনে আরপিএফ পোস্টে আসেন এবং তার কাছে নির্দিষ্ট প্রমান দেখে আরপিএফ অধিকারীরা ব্যাগটি তার হাতে তুলে দেওয়া হয়।
বিভিন্ন স্টেশনে বা ট্রেনে কিছু উদ্ধার অভিযান চালানো হলে আরপিএফ এর সেই অভিযানের নাম দেওয়া হয় অপারেশন আমানত। এক্ষেত্রেও সেই অপারেশন আমানত এর মাধ্যমে তার ব্যাগ টি ফিরে পেয়ে অত্যন্ত খুশি পৃথইন বাবু জানান, আমি আশাই ছেড়ে দিয়েছিলাম, আরপিএফ কর্মীদের অনেক ধন্যবাদ সব মূল্যবান সামগ্রী সহ আমার ব্যাগটি উদ্ধার করে তারা আমায় ফেরত দিলেন। তাদের এই দায়িত্ববোধ ও কর্তব্যবোধ এর জন্য তাদের কুর্নিশ জানাচ্ছি।

Advertisement