১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

অনুব্রত ছিলেন বড় মনের মানুষ : মুখ্যমন্ত্রী

পাপাই সরকার ,পূর্ব বর্ধমান : অনুব্রত মণ্ডলের প্রশংসায় তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একাধারে তিনি অনুব্রত মন্ডলকে ‘মাটির ছেলে’ বলেন। অন্যদিকে তিনি বললেন, অনুব্রত ছিলেন বড় মনের মানুষ। তাঁর কাছে হাত পাতলে কোনও গরীব মানুষ খালি হাতে ফিরতেন না। মাটির ছেলে কেষ্ট। আপনারা ওকে কত ভালোবাসতেন। ওর কী অগুণ আছে জানি না। কেসে কী আছে জানি না। সেটা আইন আইনের পথে চলবে। কিন্তু একটাও গরীব লোক ওর সামনে দাঁড়ালে ও ফিরিয়ে দিতনা। আউশগ্রামে বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অসিত মালের হয়ে বর্ধমানের আউসগ্ৰামে বুধবার জনসভায় ফের একবার কেষ্টর নাম উঠে এল তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের মুখে। তিনি বললেন, জেলাটা ছিল ওঁর হাতের মুঠোয়। আমি প্রশাসনিক রিভিউ মিটিংয়ে দেখতে পেতাম, ও কীভাবে কাজ করত।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

মমতার দাবি, “প্রতি ইলেকশনে ওকে নজরবন্দি করে রাখত। যাতে ইলেকশনের দিন বেরতে না পারেন। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহার বাড়িতে ইডি তল্লাশির কথাও বলেন তিনি। মমতার কটাক্ষ, চাঁদুর বাড়িতেও রেড করল।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

রেড করেই বলছে, হয় বিজেপিকে ভোট দাও নাহলে ইডির কাছে যাও।আদালত বিজেপির মহা তীর্থক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তৃণমূল নেত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, বিজেপি আদালতে আপিল করলে যা চাইবে তাই হবে আর অন্য কেউ যদি বিচার চায় তাদের জন্য দরজা বন্ধ। ডাকাত মাফিয়াদের বেল দেওয়া হচ্ছে। নাম না করে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে নিশানা করে বলেন, তার বিরুদ্ধে মার্ডার কেস থাকলেও তাকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। আদালতের নির্দেশে ২৬ হাজার শিক্ষকের নিয়োগ বাতিল নিয়ে এদিনও তিনি সরব হন।বাংলায় কি সব স্কুল বন্ধ হয়ে যাবে, শিক্ষকের চাকরি কি আর হবে না এ প্রশ্ন তোলেন তিনি। বিজেপির উদ্দেশ্যে বলেন, চাকরি দেওয়ার ক্ষমতা নেই, চাকরি কেড়ে নিতে পারে। হাইকোর্ট টাকা দিয়ে কিনে নিয়েছে বিজেপি। সুপ্রিম কোর্টের কথা আমি বলছি না। সেখানে এখনও আমরা বিচারপ্রার্থী। কিন্তু হাই কোর্টে বিজেপি চাইলেই শুধু বিচার হয়। ওরা যা চায়, হয়ে যায়। আর কেউ বিচার পায় না। নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকেও কটাক্ষ করেন মমতা। বলেন, সবচেয়ে বড় গদ্দার যে, তার বিরুদ্ধে খুনের মামলা থাকলেও কোনও বিচার হয় না। তার জেল হয় না।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

বিচারকদের উদ্দেশ্যে বলেন সারা জীবন চাকরি করার পর যে সরকারি টাকা পেয়েছেন তা যদি ফেরত দিতে হয় বলা হয় তাকি তারা দিতে পারবেন?

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

এদিনও প্রধানমন্ত্রীকে তিনি প্রচার বাবু বলে কটাক্ষ করে বলেন, মিথ্যে প্রচার করে চলেছেন। জনগণকে মিথ্যে কথা বলে ভাঁওতা দিয়ে গরিবের পকেটে কেটে সেই টাকা দিয়ে নিজেদের প্রচার চালাচ্ছে বিজেপি।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার আগে নরেন্দ্র মোদির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রত্যেকের একাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে তার একটি টাকাও কেউ পায়নি। তিনি দাবি করেন, ন’কোটি মানুষকে বিনা পয়সার রেশন দেয় রাজ্য সরকার। কোভিডের সময় কেন্দ্রীয় সরকার একবার বিনা পয়সার আসন দিয়েছিল তারপর তা বন্ধ করে দিয়েছে।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি জয়লাভ করেছিল। এবারে এত আসোন আর পাবে না। বিহার উত্তর প্রদেশ তেলেঙ্গানা ইত্যাদি রাজ্যে গতবারে তুলনায় বিজেপির আসন সংখ্যা কমবে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

তৃণমূল নেত্রী বলেন কোনভাবেই এনআরসি করতে দেওয়া হবে না। বিজেপিকে হটানোর ডাক দিয়ে তিনি বলেন, বিজেপি মোদি সরকার ক্ষমতায় এলে না থাকবে ধর্মের ব্যবহার, মানুষের অধিকার, কথা বলার অধিকার, জীবন জীবিকার অধিকার কেড়ে নেবে। ইউনিফর্ম সিভিল কোড চালু হলে মানুষের ধর্ম বিক্রি হয়ে যাবে।

Advertisement