২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
Advertisement

কন্যাদের সমান অধিকার চেয়ে পথে তিন শিক্ষিকা

মান্টি ব্যানার্জি; পূর্ব বর্ধমান ।

স্বপ্ন প্রতিটি রাজ্যে ঘুরে ঘুরে কন্যা সন্তানদের উপর অত্যাচার বন্ধ করার সচেতনতামূলক প্রচার চালাতে।

Advertisement

এর আগেও নিজে গাড়ি চালিয়ে মাইলের পর মাইল দেশের এই প্রান্ত থেকে ওই প্রান্ত ঘুরে বেড়িয়ে বিভিন্নভাবে সচেতনতামূলক প্রচার চালিয়ে খবরের শিরোনামে এসেছেন শারীরশিক্ষা বিভাগের শিক্ষিকা সুতপা দাস।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

এমন অভিযানে আগেও গিয়েছেন সুতপা। ২০২২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর নিজের গ্রাম থেকে গাড়ি চালিয়ে দেশের সোনালী চতুর্ভুজে ঘোরেন। সেইবার ১৭ টি রাজ্যে ঘুরেছিলেন তিনি। পূর্বস্থলী ১ ব্লকের রাজাপুরের বাসিন্দা সুতপা দাসের এবারের অভিযানে কন্যা সন্তান বাঁচানোর আর্জি থাকবে। সেই আবেদন নিয়ে ১৬ টি রাজ্যে ঘুরতে চলেছেন প্রচারের উদ্দেশ্যে কালনা বাঘনপাড়া হাইস্কুলের শারীর শিক্ষা বিভাগের শিক্ষিকা সুতপা দেবী।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

রবিবার রাজ্যের মন্ত্রি স্বপন দেবনাথ পূর্বস্থলীর হেমায়েতপুর মোড় থেকে,ভারতবর্ষের তেরঙ্গা পতাকা নেড়ে তার যাত্রা শুরুর শুভ সূচনা করেন। সুতপা দেবীর সফর সঙ্গী হিসেবে আছেন আরো দুই শিক্ষিকা।

সুতপা দেবী জানান দেড় মাস ধরে তারা প্রায় ১০ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবেন। এই রকম সচেতনামূলক প্রচারের জন্য যে সময় বিদ্যালয় থেকে ছুটি পাওয়া যায় সেই ছুটিটাকেই কাজে লাগান তিনি। ঝাড়খন্ড, বিহার, উত্তর প্রদেশ, দিল্লি, হরিয়ানা হয়ে হিমাচল প্রদেশে পৌঁছুবেন তিনি। তারপর মানালি হয়ে লাদাখ এবং কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী যাবেন। যাত্রাপথে ১৬ টি রাজ্য অতিক্রম করবেন তিনি। সুতপা দেবী আরো বলেন এইরকম সচেতনতা মূলক প্রচারের উদ্দেশ্য কন্যা সন্তানদের উপর অত্যাচার বন্ধ হোক সমাজে |

Advertisement

 

 

Advertisement

মেয়েদের যেন একটা সম্মানের জায়গায় দেখা হয়। তিনি জানান তাদের যাত্রাপথে প্রত্যেকদিন সন্ধ্যে নামা পর্যন্ত তিনি গাড়ি চালাবেন পরে কোন নিরাপদ জায়গায় প্রত্যেক দিন আশ্রয় নেবেন, তবে আগের থেকে ঠিক করে রাখেন না তার নির্দিষ্ট জায়গা।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

সুতপা দেবীর অতি প্রিয় সাদা গাড়ির বিভিন্ন জায়গায় ‘সেভ গার্ল চাইল্ড লেখা স্টিকার লাগানো হয়েছে। সুতপা দেবী হাতে স্টিয়ারিং ধরে তার স্বপ্নের অভিযান শুরু করলেন আজ। সুতপা দেবীর মত নারীদের সমাজের প্রয়োজন অনেকটাই যারা আলো দেখাবে নতুন দিনের।

Advertisement