১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

সূর্যের প্রখর তেজে যানচালকদের  ঠান্ডা জলপান মঙ্গলকোট পুলিশের 

পারিজাত মোল্লা, মঙ্গলকোট : তীব্র দহনে শুধু বাংলা নয় পুড়ছে গোটা দেশ। কোথাও ৪০ ডিগ্রি আবার কোথাও বা ৪২ ডিগ্রির বেশি।আগুনের মত গরম থেকে রক্ষা পেতে ফ্যান – এয়ার কুলার – এসির দোকানে বড্ড ভীড়।মহারাষ্ট্রের নভি মুম্বইতে ভূষণ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে  হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে   ১১ জনের ।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

গত রবিবার সরকারি উদ্যোগেই পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। খোলা আকাশের নীচে মঞ্চ বেঁধে চলছিল অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান।সেখানেই হিট স্ট্রোকে মারা গেছেন ১১ জন।ঠিক এইরকম পরিস্থিতিতে পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোট থানার পুলিশ কে  সোমবার এক মানবিক উদ্যোগ গ্রহণ করতে দেখা গেল।এদিন থানার গেটের সামনে ত্রিশজন মত পুলিশ কর্মী পথচলতি মানুষজনের জন্য ঠান্ডা জল গ্লুকোজ সহ, এর পাশাপাশি লেবুর সরবত খাওয়ানোর আয়োজন করে থাকে। শুধু তাই নয় মোটরসাইকেল চালক, লরি – ট্রাক্টর – বাস চালকদের জন্য সারাটা দুপুর জুড়ে ছিল এই গ্লুকোজ – লেবু জল খাওয়ানোর আয়োজন।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

মঙ্গলকোট থানার আইসি পিন্টু মুখার্জির নেতৃত্বে সাব ইন্সপেক্টর – এসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর পদমর্যাদা পূর্ণ অফিসাররা অত্যন্ত গুরত্ব সহকারে এই মানবিক উদ্যগে সামিল হতে দেখা যায়। শুধু ঠান্ডা জলপান করানো নয় হিট স্ট্রোক থেকে বাঁচতে বিভিন্ন জনসচেতনতার বার্তা দিতে দেখা যায় পুলিশ কর্মীদের কে। মঙ্গলকোট থানার আইসি পিন্টু মুখার্জি জানান -” এই ধরনের উদ্যোগ আমরা প্রায়শই করে থাকি”। এদিন যান চালকরা প্রথমে ভেবেছিলেন গাড়ির কাগজপত্র পরীক্ষা করার জন্য হয়তো এই অস্থায়ী শিবির। পরবর্তীতে পুলিশ কর্মীদের হাতের গ্লাসে ঠান্ডা গ্লুকোজ জল পেয়ে তারা যেন তৃপ্ত। কেননা জলের আরেক নাম যে জীবন…..

Advertisement