১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

তার চোদ্দ পুরুষ চোর। বাড়ির চাকর বাকর কুকুর বিড়াল সব চোর : দিলীপ ঘোষ

নিজস্ব প্রতিনিধি : ফের বিতর্কিত মন্তব্য বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপির প্রার্থী দিলীপ ঘোষের।তৃণমুল কংগ্রেসের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন বলে জানান তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়।

 

Advertisement

আবারো বেফাঁস মন্তব্য বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষের।

 

Advertisement

প্রধানমন্ত্রী নন প্রচারমন্ত্রী। ৮ হাজার কোটি টাকার বিমানের চেপে প্রচার করে বেড়াচ্ছেন।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

আসানসোলের তৃণমূল প্রার্থী শত্রুঘ্ন সিনহার এই মন্তব্যে এদিন কড়া জবাব দিলেন বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ। সোমবার বর্ধমানের দেওয়ানদিঘী মোড় এলাকায় প্রাতঃভ্রমণে বেড়িয়ে এই প্রসঙ্গে তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হলে দিলীপবাবু বলেন, কারো বাপের টাকায় চড়ছে নাকি? দেশের ১৪০ কোটি মানুষের প্রধানমন্ত্রী। আমেরিকার বাইডেনের চেয়েও দামি বিমান হওয়া উচিত। তিনি বলেন, আমাদের ভিখারির পার্টি নয়,ভিখারির দেশও নয়। যারা ভিখারি বানিয়েছে তারা এসব বলছে। শত্রুঘ্ন সিনহা এবং কীর্তি আজাদ তারা জানেনা বর্ধমানের কি পরিস্থিতি।তারা তো বহিরাগত। প্রচারটা শেষ করে ভোটটা করুক। তার আগেই না রিটায়ার্ড হয়ে যায়। তাপমাত্রা বাড়ছে। লড়াই করুক। শুনলাম একজন ছুটি নিয়ে বাড়ি যাচ্ছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

এদিন দিলীপবাবু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় প্রসঙ্গে বলেন,অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বিজেপির মাথার চুল থেকে পায়ের নখ পর্যন্ত ২ নম্বরী। কোন ভদ্রলোক বিজেপি করে না। একথার উত্তরে দিলীপবাবু বলেন, উনি একমাত্র ভদ্রলোক আছেন। যার বাড়ির বউ থেকে মেয়ে, চাকর বাকর সবাইকে ইডি ডাকছে। রাস্তা দিয়ে যাচ্ছে চোর চোর আওয়াজ দিচ্ছে।তার চোদ্দ পুরুষ চোর। বাড়ির চাকর বাকর কুকুর বিড়াল সব চোর। এই কালচার নিয়ে এসেছে ব্যানার্জি পরিবার। আর আজকে মুখ্যমন্ত্রীকে চোর চোর শুনতে হচ্ছে ওনার জন্য। গঙ্গারামপুরে বিএসএফ গুলি চালিয়েছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, আমার এক ভাইকে বিএসএফ গুলি চালিয়েছে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, বিএসএফ বিজেপিতে ভোট দিতে বলছে। এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, ওনার ভাই যদি শাজাহান, ভাদু শেখ হয় তারা তো গুলিই খাবে একদিন। আজ হোক বা কাল হোক। বুঝতে পারছেন না উত্তরপ্রদেশে কি রকম হচ্ছে? দুই ভাই একসঙ্গে খেলো, ওপরে চলে গেল। সময় আসছে। দিদির ভাইদের কপালে ওটাই লেখা রয়েছে। জনতা বুঝিয়ে দেবে। সেই জন্য যারা কাটমানি খায়,তোলাবাজি করে, রেশন খায়, যারা ১০০ দিনের কাজে টাকা খায় তারা কি খাবে?শেষ পর্যন্ত গুলিই তো খাবে, তাই না। তবে কি বুলডোজার সরকার চলবে । মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন টার্গেট হয়ে গেছেন উনি এবং ওনার ভাইপো। দিলীপবাবু বলেন, ভোট হলেই উনি টার্গেট হন। খালি টার্গেট। একদিন বাঘিনী। আর ভোট হয়ে গেলেই বিড়াল হয়ে যান। আমি মেয়ে। আমাকে একা টার্গেট করছে। যা কর্ম করেছেন তার ফল ভোগ করতে হবে। এবারের ভোটে উনি কোনও সিমপ্যাথি পাবেন না। পুরো বাংলা সমাজকে দুর্নীতিতে ছেয়ে দিয়েছেন। নেতাদেরকে চোর বানিয়েছেন। চোরদেরকে নেতা বানিয়েছেন। এর প্রায়শ্চিত্ত ওনাকেই করতে হবে। উনি ভেবেছিলেন বেঁচে যাব। কিন্তু কোন রাস্তা নেই মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, আগে কালীপটকা ফাটান তারপর বোমা পাঠাবেন।

Advertisement

দেখে রাখুন কি হয়। না বোমা বন্দুক দিয়ে তো রাজনীতি হয় না।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

দিলীপবাবু বলেন, কালকে পালসিটে আমাদের ছেলেরা ঝান্ডা বাঁধছিল। বর্ধমান উত্তরের যে এমএলএ সে দাঁড়িয়ে থেকে মারপিট করিয়েছে। আমাদের লোককে মেরেছে। যত ইলেকশন এগিয়ে আসছে তত হারার সম্ভাবনা বাড়ছে।দিলীপ বাবুর এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে বর্ধমান জেলা তৃণমুল কংগ্রেসের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। অভিষেক ও মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পরিবারের বিরুদ্ধে দিলীপের বক্তব্যে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার আবেদন জানিয়েছেন রবীন্দ্রনাথবাবু।

Advertisement