১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা, দ্রুত পদক্ষেপ প্রশাসনের

নিজস্ব প্রতিনিধি : ভোটের মুখে যে কোনো অনৈতিক কাজ রুখতে সর্বদা সচেষ্ট রয়েছে জেলা প্রশাসন এমনটাই এদিন সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যমে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করলেন জেলা প্রশাসন।।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

এদিন পূর্ব বর্ধমান জেলার জেলাশাসক কে রাধিকা আইয়ার এক সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যমে জানিয়েছেন, লোকসভা ভোটে অবৈধ লেনদেন রুখতে গোটা জেলা জুড়ে ভিজিল্যান্স টিমের হাতে ধরা পড়েছে ত্রিপল, পোশাক, সাইকেল, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম। ভোটের মুখে এগুলি দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করা হচ্ছিল বলে মনে করছে জেলা প্রশাসন। আটক হওয়া এই সামগ্রির মোট আর্থিক মূল্য ৩ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪৫ হাজার ২৫৮টাকা। তিনি জানিয়েছেন, গত ১৬ মার্চ থেকে বৃহস্পতিবার ১০ মে পর্যন্ত গোটা জেলায় বিভিন্নভাবে ৭ কোটি ৭২ লক্ষাধিক টাকা (নগদ এবং বিভিন্ন সামগ্রীর মূল্য) বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। জেলাশাসক জানিয়েছেন, এই সময়কালের মধ্যে আবগারী দপ্তর ৩ কোটি ৪৭ লক্ষাধিক টাকার মদ বাজেয়াপ্ত করেছে। এছাড়াও সম্প্রতি কাটোয়া ষ্টেশন থেকে ৬ কেজি ৪২ গ্রাম রূপো যার আর্থিক মূল্য ৫ লক্ষ ২৬ হাজার বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

এছাড়াও আয়কর দপ্তর এবং পুলিশ নগদ ১৯ লক্ষ ৭৯ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে। উল্লেখ্য, এদিন জেলাশাসক জানিয়েছেন, জেলার প্রতিটি বুথেই থাকবে আধা সামরিক বাহিনী। মোট ১৫০ কোম্পানী আধা সামরিকবাহিনী মোতায়েন থাকবে ১৩ মে বর্ধমান জেলার ভোটের দিন। তিনি জানিয়েছেন, প্রতিটি বুথেই থাকবে ওয়েবকাষ্টিং। এবারেই প্রথম জেলার কন্ট্রোল রুমে থাকবে আধা সামরিক বাহিনীর অফিসার। বিভিন্ন জায়গা থেকে কোনো অভিযোগ আসলে দ্রুত সেই অভিযোগের মীমাংসা করতে থাকছে ৩১টি ক্যুইক রেসপন্স টিম। উল্লেখ্য, রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের যৌথ সংগ্রামী মঞ্চের পক্ষ থেকে অভিযোগ জানানো হয়েছে প্রায় ৭০০জনকে পোষ্টাল ব্যালটে ভোট দিতে দেওয়া হয়নি। এব্যাপারে এদিন জেলাশাসক জানিয়েছেন, গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে এবং দ্রুত এব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

Advertisement