১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Advertisement

৪৫০৬টি বুথের মধ্যে ৪৪৪টি বুথকে ঝুঁকিপুর্ণ বুথ হিসাবে চিহ্নিত, জেলায় বাজেয়াপ্ত প্রায় আড়াই কোটি টাকা

নূতন ভোরের প্রতিবেদন : এদিন পূর্ব বর্ধমান জেলার জেলাশাসক কে রাধিকা আইয়ার সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যমে লোকসভা নির্বাচনের সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি তুলে ধরেন।

এখনও পর্যন্ত গোটা জেলায় ৪৫০৬টি বুথের মধ্যে ৪৪৪টি বুথকে ঝুঁকিপুর্ণ বুথ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়াও ৫১২টি বুথকে সংকটপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

তিনি আরো জানান,

লোকসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত পূর্ব বর্ধমান জেলায় ২ কোটি ৩২ লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত করল রাজ্য এক্সাইজ, জিএসটি ও কমার্শিয়াল ট্যাক্স বিভাগ এবং রাজ্য পুলিশ। তিনি জানিয়েছেন, গত মার্চ মাসের ১ থেকে ১৫ তারিখ পর্যন্ত জেলা বন দপ্তর প্রায় ৩ লাখ টাকা, রাজ্য আবগারী দপ্তর ২ কোটি ৬৮ লক্ষ ১২ হাজার টাকা, রাজ্য জিএসটি ও কর্মাশিয়াল ট্যাক্স বিভাগ ২ কোটি ১০ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকা এবং রাজ্য পুলিশ ৩৪ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত করেছিল। উল্লেখ্য, এদিন জেলাশাসক জানিয়েছেন, পূর্ব বর্ধমান জেলায় আগামী ১৩ মে ভোটের জন্য আগামী ১৮ এপ্রিল নোটিফিকেশন জারী হবে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

ওইদিন থেকেই মনোনয়নপত্র দাখিল শুরু হবে। চলবে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত। মনোনয়ন স্ক্রুটিনি করা হবে ২৬ এপ্রিল। ২৯ এপ্রিল মনোনয়ন প্রত্যাহার। এদিন জেলাশাসক জানিয়েছেন, নির্বাচন ঘোষণার পর থেকে নির্বাচনী বিধি ভঙ্গের বিষয়ে এখনও পর্যন্ত ১৩৫টি অভিযোগ টেলিফোনের মাধ্যমে আসে। যার সবগুলিই নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এছাড়াও ১৮৪টি অভিযোগ সিভিজিল এ্যাপে নথীভুক্ত হয়েছে যার মধ্যে ১৪৮টির নিষ্পত্তি করা হয়েছে। বাকি ৩৬টি অভিযোগ ভূয়ো প্রমাণিত হয়েছে। এছাড়াও অবৈধভাবে দেওয়াল লিখন, পোষ্টার, ব্যানার প্রভৃতি টাঙানোর জন্য ১ লক্ষ ১০ হাজার ২৬৩টি অভিযোগের নিষ্পত্তি করা হয়েছে।

Advertisement

 

 

Advertisement

 

 

Advertisement

জেলাশাসক জানিয়েছেন, গোটা পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের অধীনে লাইসেন্সপ্রাপ্ত বন্দুক বা আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে ৪৭৪০টি এবং এই জেলার মধ্যে কিন্তু আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের অধীনে রয়েছে ২২৮টি আগ্নেয়াস্ত্র। গত ১ ডিসেম্বর থেকে এখনও পর্যন্ত প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে অথবা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে ২০৬৮টি আগ্নেয়াস্ত্র। এদিন জেলাশাসক কে রাধিকা আইয়ার জানিয়েছেন, তিনি জানিয়েছেন, গোটা জেলায় এখনও পর্যন্ত ৯৫২জন ভোটারকে এইরকম ঝুঁকিপূর্ণ ভোটার হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়াও ১৬৩৯জন ভোটারকে ঝামেলাবাজ বা ট্রাবল মঙ্গার হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

 

Advertisement

 

 

Advertisement

 

জেলাশাসক জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন কেশে ২৩জনকে জেল হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। ৫১৫টি কেশ রুজু করা হয়েছে। ২টি মামলায় এখনও পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থাই নেওয়া হয়নি। তিনি জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত ১০৭, ১০৮,১০৯, ১১০, আর/ডবলু ১১৬(৩) অফ সিআর.পিসি,১৯৭৩ অনুসারে ২১৬০জনের বিরুদ্ধে মোট ১০১৮টি কেস নথীভুক্ত করা হয়েছে। এছাড়াও এই জেলায় পুলিশ সুপারের অধীনে ৮৪২টি জামিন অযোগ্য মামলা করা হয়েছে। ভোট ঘোষণার পর এখনও পর্যন্ত এসপি ও এডিপিসি এলাকা থেকে মোট ৬৩টি বেআইনী আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এছাড়াও মোট ১১০টি কার্তজ ও ১১৯টি বোমা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। উল্লেখ্য, এদিনই সমস্ত স্বীকৃত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে জেলাশাসক সহ জেলাপ্রশাসনের আধিকারিকরা ইভিএম, ভিভিপ্যাটগুলিকে বিশেষ সফ্টওয়্যারের মাধ্যমে বিক্ষিপ্তভাবে বিতরণ করা হয় বিভিন্ন কেন্দ্রে।

Advertisement